১ম বাংলাদেশ ফিন্টেক অ্যাওয়ার্ড এ ১১টি বিভাগে ২৬টি অর্থ প্রযুক্তি উদ্ভাবনকে সম্মাননা প্রদান

প্রকাশঃ ১১:১৮ মিঃ, নভেম্বর ২৮, ২০২১
Card image cap

লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের পরিবেশনায় ১ম বাংলাদেশ ফিনটেক অ্যাওয়ার্ড যার পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল উপায় এবং সহযোগিতায় ছিল দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড। শেরাটন ঢাকার গ্র্যান্ড বলরুমে একটি জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২৬টি অর্থ প্রযুক্তি উদ্ভাবনকে ১১ ক্যাটাগরিতে স্বীকৃতি দিয়েছে।

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের পরিবেশনায় ১ম বাংলাদেশ ফিনটেক অ্যাওয়ার্ড যার পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল উপায় এবং সহযোগিতায় ছিল দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড। শেরাটন ঢাকার গ্র্যান্ড বলরুমে একটি জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২৬টি অর্থ প্রযুক্তি উদ্ভাবনকে ১১ ক্যাটাগরিতে স্বীকৃতি দিয়েছে।  অনুষ্ঠানে দেশের আর্থিক খাতের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, সরকারী ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাবৃন্দ এবং ফিনটেক উৎসাহীর উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ ফিনটেক ফোরামের উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের আয়োজনে এই মর্যাদাপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

১ম বাংলাদেশ ফিন্টেক অ্যাওয়ার্ড ১১ টি স্বতন্ত্র বিভাগে ২৬টি অর্থ প্রযুক্তি উদ্ভাবনকে স্বীকৃতি দিয়েছে, বিজয়ী এবং অনারেবল মেনশন এই দুই বিভাগে। অ্যাওয়ার্ডটির প্রথম সংস্করণ এ ১০০ এর ও বেশি নমিনাশন এসেছে যা পরবর্তীতে বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে গঠিত ৪টি বিচক্ষন জুরির মাধ্যমে বিজয়ী উদ্ভাবনগুলোকে চিহ্নিত করা হয়েছে। 

পুরস্কার প্রদান করেন ড. দেওয়ান এম. হুমায়ুন কবির, প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম সচিব), এটুআই প্রোগ্রাম, আইসিটি বিভাগ; অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল মোমেন, পরিচালক, ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট (আইবিএ), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়; প্রফেসর ডক্টর মুহাম্মদ আবদুল মঈন, ডিন (ভারপ্রাপ্ত), বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রফেসর ইমরান রহমান, উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)। নাজিয়া আন্দালিব প্রিমা, পরিচালক ও ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর, বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম; প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশ ক্রিয়েটিভ ফোরাম; প্রেসিডেন্ট, উইমেন ইন লিডারশিপ। .

জনাব শরিফুল ইসলাম, প্রতিষ্ঠাতা বাংলাদেশ ফিন্টেক ফোরাম ও বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বলেন,” আমরা ক্ষমতায়ন, জলবায়ু পরিবর্তন বা উদ্ভাবন সম্পর্কে যে কথাই বলি না কেন আর্থিক উদ্ভাবনগুলোকে পুরো সমীকরণের কেন্দ্রে থাকতে হবে। ফিনটেক সামিটে, আমাদের মূল উদ্দেশ্য হল নতুন এবং আরও ভালো অর্থ প্রযুক্তির সমাধান খুঁজে বের করা যা একটি একক গোষ্ঠীর পক্ষে না থেকে সকল শ্রেণীর লোকেদের সেবা করে।”

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনি বক্তব্যে জনাব খাজা শাহরিয়ার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড বলেন, “সাম্প্রতিক সময়ে আমরা বাংলাদেশে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি দেখেছি কিন্তু এখনও ৫০% মানুষ আর্থিক অন্তর্ভুক্তির আওতায় নেই এবং ফিনটেক আমাদের মতো দেশে সেই ব্যবধান পূরণ করতে পারে।"

জনাব সাইদুল এইচ খন্দকার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, উপায় বলেছেন, “ফিনটেক আর্থিক বাস্তুতন্ত্রের পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে চলেছে। নির্বিঘ্ন আর্থিক প্রযুক্তির সুবিধা পেতে, আমাদের অবশ্যই সেরা কাজগুলো শিখতে হবে এবং গ্রহণ করতে হবে।"

১ম বাংলাদেশ ফিন্টেক অ্যাওয়ার্ড এর জমকালো অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তৃতা দেন বাংলাদেশ ফিনটেক ফোরাম ও বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা জনাব শরিফুল ইসলাম, এরপর স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপায় এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও জনাব সৈয়দুল এইচ. খন্দকার। 

মানুষ এবং সমাজের জন্য অর্থায়নের প্রকৃত সম্ভাবনা অনুধাবন করতে এবং বাংলাদেশকে এর সম্ভাবনা অর্জনে সহায়তার লক্ষ্যে তৃতীয় বাংলাদেশ ফিনটেক সামিট  ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয় ২৬ এবং ২৭ নভেম্বর, ২০২১ ইং তারিখে। ৪০০ এরও অধিক আর্থিক সংস্থার সাথে জড়িত পেশাদারদের অংশগ্রহনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সফল হয়েছে। 

শীর্ষ সম্মেলনের থিম ছিল "বাংলাদেশের মানুষের জন্য ফিন্যান্সের ভবিষ্যত সম্ভাবনা তৈরি করা " যার উদ্দেশ্য হল বর্তমান ফিনটেক কোম্পানিগুলোর জন্য জ্ঞান, সাফল্য এবং ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা গ্রহন করার জন্য সহযোগিতামূলক সুযোগ প্রদান করার লক্ষ্যে, উদ্যোক্তাদের জন্য সংলাপ শুরু করার জন্য, ভবিষ্যৎ ফিনটেক কোম্পানিগুলির জন্য সঠিক নীতি কাঠামোর মাধ্যমে টেকসইভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করতে এবং সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে যেন বাংলাদেশ গ্লোবাল ফিনটেক স্পেসে কাজ করতে পারে সেই প্রত্যয়ে কাজ করা। 

সামিটটি স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বক্তাদের সমন্বয়ে ৪টি কিনোট সেশন, ৪টি ইন্সাইট সেশন, ৩টি প্যানেল আলোচনা এবং ২টি কেস স্টাডি আলোচনা নিয়ে গঠিত হয়েছে। 

সামিটের আন্তর্জাতিক বক্তারা হলেন বিজয় মণি, পার্টনার, ডেলয়েট ইন্ডিয়া; টিম নিকোল, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রিমাডলার; নারায়ণন বৈদ্যনাথন, হেড অফ বিজনেস ইনসাইটস, অ্যাসোসিয়েশন অফ চার্টার্ড সার্টিফাইড অ্যাকাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ) এবং ক্রিস্টফ ডি স্পিগেলার, প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও, থ্রিফোল্ড অ্যান্ড ফ্রিফ্লো ট্রাইব।

সামিটের অন্যান্য বক্তারা হলেন,” ড. দেওয়ান এম. হুমায়ুন কবির, প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম সচিব), এটুআই প্রোগ্রাম, আইসিটি বিভাগ; সুচিন্তন চ্যাটার্জি, পার্টনার, ডেলয়েট ইন্ডিয়া; আলী রেজা ইফতেখার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড.; মোঃ আরফান আলী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ব্যাংক এশিয়া লি.; মোঃ আশরাফুল আলম, মহাব্যবস্থাপক, বাংলাদেশ ব্যাংক; রাহেল আহমেদ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, নগদ; সামিরা জুবেরি হিমিকা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, গিগা টেক লিমিটেড; মুনা ফরিদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, হ্যাচ কন্সালটেন্সি, দুবাই; নূর এলাহী, কান্ট্রি ম্যানেজার - বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন; সৈয়দুল এইচ খন্দকার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা; প্রফেসর ইমরান রহমান, ভাইস চ্যান্সেলর, ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব); অনির চৌধুরী, পলিসি অ্যাডভাইজার, A2i - অ্যাস্পায়ার টু ইনোভেট; সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, মিউটাল ট্রাস্ট ব্যাংক লি.; কামাল কাদির, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, বিকাশ লিমিটেড এবং নাজিম সাত্তার, জেনারেল ম্যানেজার, এসএমই ফাউন্ডেশন হাবিবুল্লাহ এন করিম প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টেকনোহেভেন কোম্পানি লিমিটেড; খন্দকার সাফাত রেজা, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও পরিচালক, লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং সাক্শি চাডহা, ডিজিটাল এক্সপার্ট বাংলাদেশ, ইউনাইটেড নেশনস ক্যাপিটাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড, ঢাকা, বাংলাদেশ।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ১১১ বার