“বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট” পেল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী প্রাপ্তি রহমান এর কগনিশান.এ আই প্রকল্প

প্রকাশঃ ০৫:২১ মিঃ, অক্টোবর ১৯, ২০১৯
Card image cap


টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প” (আইডিয়া) এর “বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট” পেল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কমিম্পউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী প্রাপ্তি রহমান এর দল কগনিশান.এ আই। দলের অপর দুই সদস্য হলেন একই বিভাগের শিক্ষার্থী ফারজানা ইয়াসমিন জুলি এবং গাউসুল আজম। আর এ দলের মেন্টর ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক রেজোয়ান ইসলাম।  ‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’- এই স্লোগানকে সামনে রেখে শুরু হয়েছিল শিক্ষার্থীদের জন্য জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা “স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ” এর দ্বিতীয় অধ্যায়।


১৬ অক্টোবর ২০১৯ বুধবার, ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁয়ে ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো ২০১৯ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে  “বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট” হিসেবে ১০ লক্ষ টাকার চেক স্টার্ট আপদের হাতে তুলে দেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি, এমপি। অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বেছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ এ কে এম রহমত উল্লাহ এমপি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়া উল আলম এবং গেস্ট অব অনার হিসেবে ছিলেন ডব্লিউ.আই.টি.এস- এর মহাসচিব. ডাঃ.জামেস এইচ পি সান্ট। এছাড়াও ছিলেন বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প” (আইডিয়া) এর পরিচালক (যুগ্ম-সচিব) জনাব সৈয়দ মজিবুল হক, বিসিএস এর সভাপতি মো.শাহিদ-উল-মুনীর, সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এর সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদসহ আরো অনেকে। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।


কগনিশন ডট এ আই একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছে যা একই প্লাটফর্মের মাধ্যমে রোগীকে ডাক্তার বা চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের সাথে সংযুক্ত করতে পারে। এটি ত্বকের রোগ সনাক্ত করতে ইমেজ প্রসেসিং প্রযুক্তি ব্যবহার করবে। ত্বকের রোগে ভুগছেন এমন লোকদের জন্য এটি দুর্দান্ত সমাধান হবে। এই ডিজিটাল সিস্টেমের মাধ্যমে রোগী অল্প সময়ের মধ্যে ভাল পরিষেবা পাবেন।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৩৯৪ বার