ক্রেতা-বিক্রেতার সন্তুষ্টিতে শেষ হলো ইসেট ল্যাপটপ মেলা

প্রকাশঃ ১০:৫০ মিঃ, জুলাই ১৫, ২০১৯
Card image cap

ক্রেতা-বিক্রেতার সন্তুষ্টিতে শেষ হলো তিনদিনের জমজমাট ‘ইসেট ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৯’। দর্শনার্থীদের বিপুল উৎসাহ, সমাগম আর বেচাবিক্রির মধ্যদিয়ে গত বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই থেকে ১৩ জুলাই পর্যন্ত চলে প্রযুক্তি পণ্যের সবচেয়ে বড় এই আসরটি।  

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

 ক্রেতা-বিক্রেতার সন্তুষ্টিতে শেষ হলো তিনদিনের জমজমাট ‘ইসেট ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৯’। দর্শনার্থীদের বিপুল উৎসাহ, সমাগম আর বেচাবিক্রির মধ্যদিয়ে গত বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই থেকে ১৩ জুলাই পর্যন্ত চলে প্রযুক্তি পণ্যের সবচেয়ে বড় এই আসরটি।  

মেলাতে অংশ নেয়া বিভিন্ন স্টল ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা জানান, তিনদিনই খুব ভালো বেচা-বিক্রি হয়েছে। যারা ল্যাপটপ কেনার ইচ্ছা করেছিল এবং বাজেট রেখেছিল তারা ল্যাটপটপ কিনেই ফিরেছেন। শুক্রবার এবং শনিবার সকাল থেকেই ছিল উপচে পড়া ভিড়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই দুইদিন বিক্রিও বেড়েছে। এ ছাড়াও, ক্রেতাদের লাইন ধরে টিকিট বুথেও সামনে থেকে টিকিট কেটে মেলাতে প্রবেশ করতে দেখা গেছে।

মেলার তিনদিনই ছিল ল্যাপটপের সঙ্গে নানা ধরনের উপহার, ছাড় এবং অফার। ল্যাপটপ কিনে অনেক ক্রেতা কার্ড স্ক্র্যাচ করে পেয়েছেন ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্যাশব্যাক, অনেকে পেয়েছেন নানা ধরনের উপহার। মেলা শেষে এইচপি ল্যাপটপের র‌্যাফেল ড্রতে এক ক্রেতা পেয়েছেন ১ লাখ টাকা। 

এক্সপো মেকারের এজিএম সিরাজুল ইসলাম সার্থক বলেন, তিনদিনই মেলায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। ক্রেতা-বিক্রেতাদের সন্তুষ্টিতেই শেষ হয়েছে ‘ইসেট ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৯’। প্রযুক্তি পণ্যের এই আসরটির জন্য অনেকেই অপেক্ষা করেন। বাজেট নিয়ে মেলাতে আসেন পছন্দের ল্যাপটপ কেনার জন্য। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। আয়োজক হিসেবে আমরাও খুশি ক্রেতাদের উৎসাহ দেখে।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনব্যাপী মেলাটি চলে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। এক্সপো মেকারের আয়োজনে ছিল এটি দেশের ২১তম ল্যাপটপ প্রদর্শনী। মেলায় ডেল, আসুস, এইচপি, লেনোভো, ওয়ালটন, আইলাইফ, চুই ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ কিনেছেন ক্রেতারা। এ ছাড়াও, ইসেট এবং ক্যাসপারেস্কির অ্যান্টিভাইরাস-সিকিউরিটি পণ্যসহ অ্যাক্সেসরিজও কিনেছেন ক্রেতারা।

 এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে মেলা উদ্বোধন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। 

এবারের আয়োজনে ১টি টাইটেল স্পন্সর প্যাভিলিয়ন, ৪টি স্পন্সর প্যাভিলিয়ন, ২৬টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ১০টি স্টলে দেশ-বিদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সর্বশেষ প্রযুক্তির পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করে। মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিল ইসেট। সহ-পৃষ্ঠপোষক ছিল আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো। সাইবার সিকিউরিট পার্টনার হিসেবে যুক্ত ছিল ক্যাসপারস্কি। এ ছাড়াও, পার্টনার ছিল তথ্যপ্রযুক্তি ও টেলিকম বিষয়ক বিশেষায়িত নিউজ পোর্টাল টেকশহরডটকম (techshohor.com)  এবং এডুমেকার।

প্রতিবারের মতো এবারো মেলার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে (facebook.com/laptopfair.bd)  কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। ছিল কুইজে অংশ নিয়ে আকর্ষনীয় পুরস্কার জেতার সুযোগ। মেলায় প্রবেশ মূল্য ছিল ৩০ টাকা। তবে স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরিহিত অবস্থায় কিংবা পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে বিনামূল্যে প্রবেশ করেছে। প্রতিবন্ধীরাও বিনামূল্যে প্রবেশ করার সুযোগ পেয়েছে।


সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ১১৩ বার