ওয়ালটন স্মার্টফোন কিনে এয়ার টিকিট পেলেন দুজন

প্রকাশঃ ০৫:০৪ মিঃ, জানুয়ারি ৩০, ২০১৯
Card image cap

ওয়ালটন স্মার্টফোন কিনে এয়ার টিকিট পেলেন দুজন

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

ওয়ালটন স্মার্টফোন কিনে ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা বিমান টিকিট পেয়েছেন দুজন ক্রেতা। তারা হলেন নারায়ণগঞ্জের মো. নুরুজ্জামান এবং জামালপুরের সাজেদুল ইসলাম। ওয়ালটন স্মার্টফোন কিনে এয়ার টিকিট পেয়ে মহাখুশি তারা।

নুরুজ্জামান গত ২২ জানুয়ারি সোনারগাঁও ওয়ালটন প্লাজা থেকে ‘প্রিমো এইচসেভেনএস’ স্মার্টফোন কিনে ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা প্রথম এয়ার টিকিট পান। আর সাজেদুল গত ২৭ জানুয়ারি জামালপুর মেডিকেল রোড ওয়ালটন প্লাজা থেকে ‘প্রিমো এইচসেভেন’ স্মার্টফোন কিনে ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা দ্বিতীয় এয়ার টিকিটটি পান।

নুরুজ্জামান পোষাক তৈরির ব্যবসা করেন। সোনারগাঁও বাজারে তার টেইলারিং শপ আছে। তিনি জানান, এর আগে ওয়ালটন থেকে ফ্রিজ, মোবাইল ফোনসহ বেশ কয়েকটি পণ্য কিনেছেন। সবগুলো পণ্য দারুণ সার্ভিস দিচ্ছে। নতুন করে আরো একটি স্মার্টফোন প্রয়োজন হওয়ায় প্রিমো এইচসেভেনএস মডেলের হ্যান্ডসেটটি কেনেন তিনি।

সাজেদুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ থানায়। চাকরি করছেন বাংলাদেশ পুলিশে। বর্তমানে মধুপুর থানার এসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর (এএসআই) হিসেবে কর্মরত আছেন। ফ্রিজ, টিভি, ব্লেন্ডার থেকে শুরু করে তার ঘরের সব পণ্যই ওয়ালটনের। দেশীয় ব্র্যান্ডের পণ্য ব্যবহার করে তিনি দারুণ সন্তুষ্ট। যে কারণে স্ত্রীর একটি হ্যান্ডসেট প্রয়োজন হলে প্রিমো এইচসেভেন স্মার্টফোনটি কেনেন তিনি।

ওয়ালটন সেলুলার ফোন বিক্রয় বিভাগের প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, ‘প্রিমো এইচসেভেন’ এবং ‘প্রিমো এইচসেভেনএস’ এই দুই মডেলের স্মার্টফোনে এয়ার টিকিট ছাড়াও সর্বনিম্ন ৫০০ টাকার নিশ্চিত ক্যাশব্যাক দেয়া হচ্ছে। ফোনদুটির দাম যথাক্রমে ৬,৯৯৯ এবং এবং ৮,৯৯৯ টাকা। যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা এবং ব্র্যান্ড আউটলেট থেকে নগদের পাশাপাশি ইএমআই এবং কিস্তিতে ফোনগুলো কিনলেও এয়ার টিকিট এবং ক্যাশব্যাকের সুবিধা পাওয়া যাবে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এ সুযোগ থাকবে বলে জানান তিনি।

অফারটি পেতে ফোন কেনার পর মেসেজ অপশনে গিয়ে বিও (BO) লিখে স্পেস দিয়ে ফোনটির আইএমইআই (IMEI) নাম্বার লিখে ০১৭৫৫৬১১১১১ নাম্বারে সেন্ড করতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ক্রেতাকে এয়ার টিকিট অথবা ক্যাশব্যাকের পরিমাণ জানিয়ে দেয়া হবে।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে, প্রিমো এইচসেভেন স্মার্টফোনে রয়েছে ৫.৫ ইঞ্চির ফুল-ভিউ আইপিএস ডিসপ্লে। ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসরযুক্ত ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ১ জিবি ডিডিআরথ্রি র‌্যাম, মালি-৪০০ গ্রাফিক্স, ৮ জিবি ইন্টারন্যাল স্টোরেজ, যা ১২৮ জিবি এসডি কার্ড সাপোর্ট করবে। এর সামনে ও পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশসহ ৫ এবং ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ২৮৫০ এমএএইচ ব্যাটারির ফোনটি অ্যান্ডয়েড নূগাট ৭.০ পরিচালিত। এই ফোনে রয়েছে সর্বোচ্চ এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

প্রিমো এইচসেভেনএস দেশে তৈরি একটি ফোরজি ফোন। যাতে ব্যবহৃত হয়েছে ৫.৪৫ ইঞ্চির ফুল ভিউ আইপিএস ডিসপ্লে। এইচডি প্লাস পর্দার রেজুলেশন ১৪৪০ বাই ৭২০ পিক্সেল। ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসরযুক্ত ফোনটিতে আছে ২ জিবি ডিডিআরথ্রি র‌্যাম, পাওয়ার ভিআর জিই৮১০০ গ্রাফিক্স এবং ১৬ জিবি ইন্টারন্যাল স্টোরেজ। ফোনটির পেছনে ১৩ এবং সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ার ব্যাটারি সমৃদ্ধ ফোনটি অ্যান্ডয়েড ৮.১ ওরিও পরিচালিত। অলঅয়েজ অন ডিসপ্লে সুবিধার ফোনটির সুরক্ষায় রয়েছে ফেস আনলক এবং ফিংগারপ্রিন্ট স্ক্যানারও।

দেশে তৈরি এই ফোনে এক বছরের রেগুলার বিক্রয়োত্তর সেবার পাশাপাশি ৩০ দিনের ইনস্ট্যান্ট রিপ্লেসমেন্ট এবং ১০১ দিনের প্রায়োরিটি সেবা থাকছে।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ১১৬ বার