কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার যুদ্ধবিমান তৈরি করবে যুক্তরাজ্য-ইতালি-জাপান

প্রকাশঃ ০৮:৪৪ মিঃ, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
Card image cap

একটি যৌথ বিবৃতিতে, ব্রিটিশ, জাপানি এবং ইতালীয় নেতারা বলেছেন, আমরা গ্লোবাল কমব্যাট এয়ার প্রোগ্রাম (জিসিএপি) ঘোষণা করছি। যার মাধ্যমে ২০৩৫ সালের মধ্যে একটি পরবর্তী প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরির পরিকল্পনা করা হয়েছে।

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

ইতালি এবং জাপানের সাথে সহযোগিতায়, এটি পরবর্তী প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরি করতে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। যার লক্ষ্য হচ্ছে বর্তমানে চীন, রাশিয়া এবং এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলোর যুদ্ধবিমানগুলোকে মোকাবেলা করা।

একটি যৌথ বিবৃতিতে, ব্রিটিশ, জাপানি এবং ইতালীয় নেতারা বলেছেন, আমরা গ্লোবাল কমব্যাট এয়ার প্রোগ্রাম (জিসিএপি) ঘোষণা করছি। যার মাধ্যমে ২০৩৫ সালের মধ্যে একটি পরবর্তী প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরির পরিকল্পনা করা হয়েছে। [ সূত্র রয়টার্স ]

পরবর্তী প্রজন্মের এই যুদ্ধবিমান যেটি টেম্পেস্ট নামে পরিচিত, বর্তমানের ব্রিটিশ যুদ্ধবিমান টাইফুনকে প্রতিস্থাপন করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই বিষয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক শুক্রবার একটি টুইটে বলেছেন, এই যৌথ উদ্যোগের উদ্দেশ্য যুক্তরাজ্যের হাজারো মানুষের কর্মসংস্থান এবং নিরাপত্তা বন্ধন শক্তিশালী করা।

দেশগুলো ২০৩০ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে পরবর্তী প্রজন্মের একটি যুদ্ধবিমান তৈরি করবে যেটি টাইফুন জেটের জায়গা নেবে। আশা করা হচ্ছে, টেমপেস্ট জেটটিতে সর্বাধুনিক অস্ত্র থাকবে।  

সুনাক বলেন, নতুন যুদ্ধবিমান তৈরির অংশিদারিত্ব দেশগুলোকে নতুন নতুন হুমকি থেকে রক্ষা করবে।

শুক্রবার তিনি রয়েল এয়ারফোর্স পরিদর্শন করেন।

সুনাক বলেন, বিশ্বের কয়েকটি দেশের মধ্যে আমরা অন্যতম, যাদের প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত যুদ্ধবিমান তৈরির সামর্থ্য রয়েছে। যুদ্ধবিমানটি তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। এতে অত্যাধুনিক সেন্সর যুক্ত করা হবে। চালককে চরম চাপের মধ্যে সাহায্য করবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা।  

প্রয়োজনে চালক ছাড়াও যুদ্ধবিমানটি ওড়ানো যাবে। এ ছাড়া এটি হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে পারবে।  

এই ধরনের জটিল প্রযুক্তির যুদ্ধবিমান তৈরি অনেক ব্যয়বহুল। সবচেয়ে ব্যয়বহুল এফ৩৫ যুদ্ধবিমান তৈরির প্রকল্পটি ছিল পেন্টাগনের।  

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৫১ বার