http://mcc.com.bd/wsa  লিংকটিতে উল্লিখিত প্রক্রিয়া/পদ্ধতি অনুসরণ করে আগামী ১০ আগস্ট ২০১৮ইং তারিখের মধ্যে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

" >

শুরু হল ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার (WSA), ২০১৮ এর জন্য বাংলাদেশ পর্বের নিবন্ধন

প্রকাশঃ ০৫:১৩ মিঃ, জুলাই ১৮, ২০১৮
Card image cap


টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার, ২০১৮ এর জন্য বাংলাদেশ থেকে নিবন্ধন শুরু হয়েছে। এবার বাংলাদেশ পর্বে ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার ও বাংলাদেশি তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান এমসিসি লি. এর যৌথ উদ্যোগে এই নিবন্ধন ও বাছাই পর্বের কাজ সম্পাদিত হবে। নির্বাচিত উদ্যোগগুলোই বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করার জন্য সরাসরি বাংলাদেশ থেকে মনোনীত হবে।   

ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে, সারা বিশ্বের তথ্য প্রযুক্তির নতুন ধরনের সকল সুযোগ সুবিধাগুলোকে সমাজের সকল মানুষের কাছে উপযোগী ও সহজলভ্য করে তোলা এবং জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে সর্বোচ্চ মানের ডিজিটাল এ্যাপ্লিকেশন উদ্যোগকে প্রাপ্য স্বীকৃতি প্রদান।

প্রতিযোগীরা এবার যে আটটি বিষয়ের উপর তাদের উদ্ভাবনী প্রকল্প জমা দিতে পারবেন, সেগুলো হচ্ছে- গভর্নমেন্ট এন্ড সিটিজেন এনগেজমেন্ট, হেলথ এন্ড ওয়েল বিয়িং, লার্নিং এন্ড এডুকেশন, এনভায়রনমেন্ট এন্ড গ্রিন এনার্জি, কালচার এন্ড ট্যুরিজম, স্মার্ট সেটেলমেন্ট এন্ড আরবানাইজেশন, বিজনেস এন্ড কমার্স, ইনক্লুশন এন্ড এমপাওয়ারমেন্ট। পুরস্কারের জন্য জমাকৃত প্রকল্পগুলো দেশ সেরা প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা মূল্যায়ন করবেন এবং এখান থেকে প্রতিটি বিভাগে সর্বমোট ৩ জন করে ২৪ জন বিজয়ীকে দেশের সেরা ডিজিটাল উদ্যোগ হিসেবে সম্মাননা দেয়া হবে। প্রতিযোগিতার প্রতিটি বিভাগে বিজয়ী সেরা ৮টি (১ম স্থান) উদ্যোগ ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার ২০১৮ (WSA) বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করার জন্য সরাসরি বাংলাদেশ থেকে মনোনীত হবে।   

“ওয়ার্ল্ড সামিট পুরস্কার, বাংলাদেশ ২০১৮” পুরস্কার, সরকারি/ বেসরকারি/ প্রযুক্তি শিল্পের সাথে জড়িত যে কোন কোম্পানি, প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির জন্য উন্মুক্ত। সকল মোবাইল ও ওয়েব ভিত্তিক প্রযুক্তির এ্যাপ্লিকেশন, কিয়োস্ক , এসএমএস ভিত্তিক পণ্য, মোবাইল গেইমস, ইন্টার‍্যাক্টিভ মোবাইল কন্টেন্ট, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স , আইওটি সম্পর্কিত প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। প্রকল্পের সঙ্গে প্ল্যাটফর্ম বা চ্যানেল সম্পর্কিত কোন সীমাবদ্ধতা নেই। প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীদের পূর্ণাঙ্গ প্রকল্প জমা দিতে হবে। কোনও অবস্থাতেই ড্রাফট, পরীক্ষামূলক বা অসম্পূর্ণ প্রকল্প গ্রহণ করা হবে না। একটি প্রকল্প কেবল একটি ক্যাটাগরিতে জমা দেওয়া যাবে। একই প্রতিষ্ঠানের একাধিক প্রকল্প জমার ক্ষেত্রে প্রতিটি প্রকল্পের জন্য আলাদা আলাদা নিবন্ধন করতে হবে। আবেদনের জন্য এই লিঙ্ক এ প্রবেশ করে: http://mcc.com.bd/wsa  লিংকটিতে উল্লিখিত প্রক্রিয়া/পদ্ধতি অনুসরণ করে আগামী ১০ আগস্ট ২০১৮ইং তারিখের মধ্যে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ১৫৫ বার


মুখোমুখি

Card image cap
‘বাংলাদেশকেই হিটাচি পণ্যের বাজার হিসেবে অধিক সম্ভাবনাময় দেশ বলে মনে হয়’ - চেন টেক ব্যঙ্ক

হিটাচি হোম ইলেকট্রনিক্স এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক প্রকৃতঅর্থে একজন বয়োজষ্ঠ্য, কিন্তু তার জ্ঞানের পরিধি এবং অক্লান্ত পরিশ্রম তার বয়সকেও হার মানিয়ে দেয়। আর সে কারণেই তিনি হয়ে ওঠেন এক অদম্য যুবকের সমতুল্য। তার আধুনিক ব্যবসায়িক চিন্তাধারা এশিয় অঞ্চলে হিটাচি পণ্য ও সেবার  বাজারের ব্যাপক প্রসার ঘটাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। বাংলাদেশে হিটাচি কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর ইউনিক বিজনেস সিস্টেম লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মাসিক টেকওয়ার্ল্ড পত্রিকার প্রতিনিধির জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক এর সাক্ষাৎকার গ্রহণের সুযোগ হয়, যার উল্লেখযোগ্য অংশটুকু এখানে তুলে ধরা হলোঃ

প্রশ্নঃ সাধারণ