বাংলা সাইটে সরাসরি গুগল বিজ্ঞাপন

প্রকাশঃ ১২:৪০ মিঃ, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৭
Card image cap

বাংলা সাইটে গুগল বিজ্ঞাপন পাওয়া যাবে শর্তসাপেক্ষে। বাংলা সাইটগুলোকে গুগল বিজ্ঞাপন পেতে হলে গুগলের কাছে আবেদন করতে হবে। সুনির্দিষ্ট নীতিমালা পূরণ হলে তবেই আবেদনকারীর সাইটে গুগলের বিজ্ঞাপন দেখা যাবে।

কনটেন্টের ক্ষেত্রে বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত অর্থের ৬৮ শতাংশ সাইটের মালিকে প্রদান করে গুগল। আয় ১০০ ডলার বা তার বেশি হলে গুগল থেকে চেকের মাধ্যমে প্রাপকের কাছে অর্থ প্রেরণ করা হয়।

গুগল অ্যাডসেন্স ২০১৫ সালে বিশ্বব্যাপী প্রকাশকদের আনুমানিক ১ হাজার কোটি ডলার বিজ্ঞাপন বিল দিয়েছে।

সাব্বিন হাসান:

দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে সুখবর এলো দেশি-বিদেশি বাংলা ওয়েবসাইটের জন্য। সার্চ ইঞ্জিন গুগল এখন থেকে বাংলা ভাষার ওয়েবসাইটগুলোতে সরাসরি বিজ্ঞাপন দেবে। আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলা ভাষার ওয়েবসাইটের জন্য অ্যাডসেন্স সেবা চালুর ঘোষণা দিয়েছে গুগল। এ বিষয়ে গুগল অ্যাডসেন্স’র ব্লগপোস্টে ঘোষণা দেয়া হয়।

বাংলা সাইটে গুগল বিজ্ঞাপন পাওয়া যাবে শর্তসাপেক্ষে। বাংলা সাইটগুলোকে গুগল বিজ্ঞাপন পেতে হলে গুগলের কাছে আবেদন করতে হবে। সুনির্দিষ্ট নীতিমালা পূরণ হলে তবেই আবেদনকারীর সাইটে গুগলের বিজ্ঞাপন দেখা যাবে।

বিশ্বে বর্তমানে ৪০টি ভাষায় গুগল অ্যাডসেন্স চালু আছে। বাংলা ভাষায় অ্যাডসেন্স চালু হওয়ায় বাংলা সাইটের উদ্যোক্তাদের আগ্রহ অনেক গুণ বাড়বে। ফলে বাংলা সাইটের সংখ্যাও দ্রুতই বাড়বে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট বিশ্লেষকেরা।

অনলাইনে এখন বিশ্বজুড়ে বাংলা ভাষার কনটেন্ট বাড়ছে। এ বিবেচনায় গুগল এমন উদ্যোগ নিয়েছে বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক বাজার গবেষকেরা। গুগল সিঙ্গাপুর অফিসে অনুষ্ঠিত টপ কন্ট্রিবিউটর সামিটে এ বিষয়ে প্রথম তথ্য জানানো হয়।

মূলত গুগল অ্যাডসেন্স হচ্ছে গুগলের একটি ওয়েব অ্যাপ। এটি অংশীদারিত্ব বিনিময়কে বুঝায়। গুগল অ্যাডসেন্স’র মাধ্যমে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপনের কনটেন্ট থেকে আয় করতে পারেন ওয়েবসাইটের উদ্যোক্তারা। আসলে ‘অ্যাডসেন্স’ হচ্ছে গুগলের বিজ্ঞাপন প্রচারমাধ্যম।

অ্যাডসেন্স প্রোগ্রামের মাধ্যমে গুগল বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে থাকে। আর ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের মাধ্যমে সাইটের মালিক অর্থ উপার্জন করতে পারেন। কনটেন্টের ক্ষেত্রে বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত অর্থের ৬৮ শতাংশ সাইটের মালিকে প্রদান করে গুগল। আয় ১০০ ডলার বা তার বেশি হলে গুগল থেকে চেকের মাধ্যমে প্রাপকের কাছে অর্থ প্রেরণ করা হয়।

বর্তমানে বিশ্বের ৩৫ কোটি মানুষের ভাষা বাংলা। গুগল বলছে, এখন বিশ্বের প্রায় দেড় কোটি ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্স সুবিধা দেয়া হয়। গুগল অ্যাডসেন্স ২০১৫ সালে বিশ্বব্যাপী প্রকাশকদের আনুমানিক ১ হাজার কোটি ডলার বিজ্ঞাপন বিল দিয়েছে। ফলে যেকোনো ওয়েবসাইটের মালিকদের জন্য গুগল থেকে সরাসরি আয়ের দারুণ এক স্বয়ংক্রিয় পথ তৈরি করেছে অ্যাডসেন্স। এখন থেকে গুগল অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপনের সুফল পাবে বিশ্বের বাংলা ওয়েবসাইটগুলোও।

প্রসঙ্গত, অ্যাডসেন্স ওয়েবসাইট ছাড়াও ইউটিউব এবং মোবাইল অ্যাপে ব্যবহার করা যায়। গুগল কারিগরি বিভাগ থেকে আবদনকারীকে একটি কোড দেওয়া হয়, যা ওয়েবসাইটে ব্যবহার করতে হয় বিজ্ঞাপন প্রর্দশনের জন্য। এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানা যাবে https://goo.gl/CEFVCD-এ ঠিকানায়।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ২৩৩ বার


মুখোমুখি

Card image cap
‘বাংলাদেশকেই হিটাচি পণ্যের বাজার হিসেবে অধিক সম্ভাবনাময় দেশ বলে মনে হয়’ - চেন টেক ব্যঙ্ক

হিটাচি হোম ইলেকট্রনিক্স এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক প্রকৃতঅর্থে একজন বয়োজষ্ঠ্য, কিন্তু তার জ্ঞানের পরিধি এবং অক্লান্ত পরিশ্রম তার বয়সকেও হার মানিয়ে দেয়। আর সে কারণেই তিনি হয়ে ওঠেন এক অদম্য যুবকের সমতুল্য। তার আধুনিক ব্যবসায়িক চিন্তাধারা এশিয় অঞ্চলে হিটাচি পণ্য ও সেবার  বাজারের ব্যাপক প্রসার ঘটাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। বাংলাদেশে হিটাচি কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর ইউনিক বিজনেস সিস্টেম লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মাসিক টেকওয়ার্ল্ড পত্রিকার প্রতিনিধির জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক এর সাক্ষাৎকার গ্রহণের সুযোগ হয়, যার উল্লেখযোগ্য অংশটুকু এখানে তুলে ধরা হলোঃ

প্রশ্নঃ সাধারণ